কয়লা বিষয়ে সম্মেলন

গত মে ২-৩ তারিখে ঢাকাস্থা ব্র্যাক ইনে “বাংলাদেশে কয়লা জ্বালানী – পানি ও জলবায়ুর উপর প্রভাব” বিষয়ে দু’দিন ব্যাপী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওয়াটার-কীপার বাংলাদেশ, সুন্দরবন রক্ষায় জাতীয় কমিটি, এবং ওয়াটারকীপার এলায়েন্সের যৌথ উদ্যোগে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে কয়লা এবং জ্বালানী সম্পর্কে বাংলাদেশস্থ বিশেষজ্ঞগণ ছাড়াও বিদেশ থেকে আগত বিশেষজ্ঞরা যোগদান করেন।

সম্মেলনে বাংলাদেশে জ্বালানী উৎপাদন বৃদ্ধির প্রয়োজনীয়তা স্বীকারের পাশাপাশি এই বৃদ্ধির সুনির্দিষ্ট ধারা সম্পর্কে সরকারের বিভিন্ন সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপের সাথে দ্বিমত প্রকাশিত হয়। সম্মেলনে মত প্রকাশিত হয় যে, পরিবেশ-প্রকৃতি ও গণস্বাস্থ্যের ক্ষয়ক্ষতি বিবেচনায় নেয়া হলে কয়লাকে শস্তা জ্বালানী বলে বিবেচনা করা যায় না। বরং বাংলাদেশের অফুরান সৌর ও বায়ু শক্তি নির্ভর বিদ্যুৎ উৎপাদনের দিকে আরও জোরেশোরে এগিয়ে যাওয়া প্রয়োজন বলে সম্মেলনে অভিমত ব্যক্ত হয়। বিশেষত, সুন্দরবনের অতি নিকটে বাংলাদেশ-ভারত যৌথ উদ্যোগে একটি এবং “ওরিয়ন” নামক বাংলাদেশী কোম্পানী কর্তৃক আরেকটি বৃহদাকার কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশিত হয়।

সম্মেলনের কর্মসূচি ও গৃহীত প্রস্তাব এই “পরিবেশ সংবাদে”র পরিশিষ্ট হিসেবে নিম্নে সংযোজিত হলো। বেন আশা করে যে, সরকার এই সম্মেলনে প্রকাশিত অভিমতসমূহ যথাযথ বিবেচনায় নিবেন।

সম্মেলন সম্পর্কে সংবাদপত্র প্রকাশিত প্রতিবেদনের জন্য দেখুনঃ

 

Leave a Comment